মেহেরগড় সভ্যতা

মেহেরগড় সভ্যতার ইতিহাস

স্থান- পাকিস্তানের বেলুচিস্তান প্রদেশের মেহেরগড়। (বোলান গিরিপথ থেকে কিছু দূরে অবস্থিত) 


সভ্যতার সময়কাল - বিশ্বের সবচেয়ে প্রাচীন সভ্যতা। আনুমানিক খ্রিস্টপূর্ব ৭০০০ বছর আগে এই সভ্যতা গড়ে ওঠে। 

আবিষ্কার ও আবিষ্কর্তা :
১৯৭৪ খ্রিস্টাব্দ ফরাসি প্রত্নতাত্ত্বিক জাঁ ফ্রাসোয়া জারিজ ও রিচার্ড মিডো এই সভ্যতা আবিষ্কার করেন। 

মেহেরগড় সভ্যতার বৈশিষ্ট্য :
প্রথম পর্ব :
* সময়কাল- ৭০০০ খ্রীষ্টপূর্ব থেকে ৫০০০ খ্রিস্টপূর্ব পর্যন্ত। 
এসময় মানুষেরা গম, যব ফলাতে জানত।
পাথরের তৈরি যাঁতার ব্যবহারের সন্ধান পাওয়া যায়। গৃহপালিত পশুর মধ্যে ছিল ছাগল, ভেড়া, কুজওয়ালা ষাঁড়। পশুর হাড়ের যন্ত্রপাতি তৈরি করতে পারত।
এই সভ্যতায় বাড়িগুলো রোদে পোড়া ইট দিয়ে তৈরি। শস্য মজুত করার বাড়ির নিদর্শন পাওয়া গেছে মেহেরগড়ে। 

দ্বিতীয় পর্ব:
* সময়কাল- ৫০০০ খ্রিস্টপূর্ব থেকে ৪০০০ খ্রিস্টপূর্ব পর্যন্ত। 
এই পর্বে গম, যব ছাড়াও কার্পাস চাষের সন্ধান পাওয়া যায়। মেহেরগড়ে পাথরের কাস্তে ব্যবহারের প্রমাণ পাওয়া যায়। এই পর্বে প্রথম দিকে হাতে তৈরি মাটির পাত্র তৈরি হতো তবে এই পর্বের শেষে কুমোরের চাকায় তৈরি মাটির পাত্র পাওয়া যায়। বিভিন্ন ধরনের পাথর ও শাঁখ দিয়ে অলঙ্কার তৈরি করা হতো। 

তৃতীয় পর্ব:
* সময়কাল- ৪৩০০ খ্রিস্টপূর্ব থেকে ৩৮০০ খ্রিস্টপূর্ব পর্যন্ত। 
এই পর্বে বিভিন্ন ধরনের গম, যব চাষ করা হতো। চাকায় মাটির পাত্র তৈরি করা হতো। পাত্র পুড়িয়ে সেগুলোর উপর রঙ দিয়ে নকশা করা হতো। মেহেরগড় সভ্যতায় তামার ব্যবহারের সন্ধান পাওয়া যায়। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ

Translate